হিন্দু বিয়েতে সাত পাক ঘোরা হয়, কিন্তু কেন জানেন কি? | Bengali News on Bengali Movie, Health, Lifestyle, Remedies, Food & Sex

হিন্দু বিয়েতে সাত পাক ঘোরা হয়, কিন্তু কেন জানেন কি?

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp

সাত জন্মের প্রতিজ্ঞাকে আরও বেশি মজবুত করতেই বিয়ের সময়ে সাত পাক একসঙ্গে ঘোরার নিয়ম। পবিত্র অগ্নিকে সাক্ষী রেখে বর-কনে একে অন্যের কাছে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হন যে সুখে, দুঃখে, সময়ে, অসময়ে, ভাল, মন্দে সব সময়ে তাঁরা একে অন্যের সঙ্গে থাকবেন এবং কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে তাঁদের জীবন অতিবাহিত করবেন। (what is the significance of saat phera in hindu wedding)

হিন্দু বিয়েতে সাত পাক ঘোরার সময়ে অনেক মন্ত্র পড়া হয়, বর-কনে পুরোহিত মহাশয়ের বলে দেওয়া মন্ত্র অনেকসময়েই না বুঝেই বলতে থাকেন। কিন্তু প্রতিটি মন্ত্রের এক একটি অর্থ রয়েছে যা বিয়ের পরের জীবনের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তা হলে দেরি না করে জেনে নেওয়া যাক সাত পাকের মাহাত্ম্য।

প্রথম পাক: পবিত্র অগ্নির সামনে দাঁড়িয়ে বর, কনেকে কথা দেন যে বিয়ের দিন থেকে কনের ভরণ-পোষণের দায়িত্ব তাঁর। অগ্নি এবং অন্যান্য দেবদেবীর আশীর্বাদে যাতে কোনওদিনই নব-দম্পতির অন্ন-বস্ত্রের অভাব না হয় সেই দায়িত্ব বর নেন। উত্তরে কনে প্রতিজ্ঞা করেন যে সংসারের সুখের জন্য খুটিনাটি বিষয়ও তিনি নজরে রাখবেন। (what is the significance of saat phera in hindu wedding)

দ্বিতীয় পাক: সাত পাকের দ্বিতীয় পাক ঘোরার সময়ে বর-কনে একে অন্যকে প্রতিজ্ঞা করেন যে তাঁরা জীবনের সব ওঠাপড়ায় একে অন্যের সঙ্গে থাকবেন। বর কনেকে বলেন যদি কখনও কোনও বিপদ আসে, তা হলে তিনি তাঁর স্ত্রী-সন্তানদের রক্ষা করবেন। আবার উত্তর কনে বরকে কথা দেন যে, সব সময় তিনি তাঁর স্বামীকে সাহস ও শক্তি যোগাবেন।

তৃতীয় পাক: তৃতীয় পাকে বর এবং কনে একে অন্যের পার্থিব সুখের দিকে নজর দেবেন বলে প্রতিজ্ঞা করেন। তবে একইসঙ্গে আবার আধ্যাত্মিক পথেও হাটবেন বলেও একে অপরকে কথা দেন। (what is the significance of saat phera in hindu wedding)

চতুর্থ পাক: সাত পাকের চতুর্থ পাক ঘোরার সময়ে বর কনেকে কথা দেন যে সর্বাঙ্গে তিনি তাঁর স্ত্রীয়ের সম্মান রক্ষা করবেন এবং কনে বরের কাছে প্রতিজ্ঞা করেন যে সারাজীবন তিনি তাঁর স্বামীকে ভালবাসবেন, অন্য সব পুরুষরা তাঁর কাছে গৌন।

পঞ্চম পাক: একে অন্যকে সব সময় ভালবাসা এবং সম্মান করার প্রতিজ্ঞা হয় সাত পাকের পঞ্চম পাকটিতে। বর-কনে একসঙ্গে দেবদেবীর কাছে প্রার্থনা করেন যাতে তাঁদের সংসার আনন্দে ও সমৃদ্ধিতে পূর্ণ হয়ে ওঠে, তাঁদের সন্তান/রা যেন সুস্থ থাকে। বর এবং কনে একে অপরের সবচেয়ে কাছের বন্ধু হয়ে ওঠার অঙ্গিকারও করেন।

ষষ্ঠ পাক: ষষ্ঠ পাক নেওয়ার সময়ে সারা জীবন একে অপরের সঙ্গে থাকবেন – এই প্রতিজ্ঞাই করেন বর এবং কনে। (what is the significance of saat phera in hindu wedding)

সপ্তম পাক: সাত পাকের শেষ পাকটি নেওয়ার সময়ে বর বলেন, এখন থেকে আমরা স্বামী-স্ত্রী হলাম। এখন থেকে আমরা এক। কনেও তাতে সহমত দেন।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Related Article

Recent Article

Astrology: জোড়া শালিক দেখা কি ভাল? কী বলছে জ্যোতিষ শাস্ত্র

আমাদের হিন্দুদের মনে পশু পাখিদের নিয়ে অনেক রকম সংস্কার রয়েছে। অনেকে বলে বাড়িতে গরু পোষা অত্যন্ত শুভ। প্রাচীন কাল থেকেই এই কথাগুলি লোকমুখে প্রচারিত। এই

Cartoon : আমুলের কার্টুনে ‘বেলাশুরু’, সৌমিত্র-স্বাতীলেখাকে শ্রদ্ধা সংস্থার

চিরুনি দিয়ে আরতির চুল আঁছড়ে দিচ্ছেন বিশ্বনাথ । ‘বেলাশুরু’ (Belashuru)-র এই একটা দৃশ্য যেন বিশ্বনাথ-আরতির ভালবাসার গল্প বলে যায় । এবার এই ভালবাসার দৃশ্যই ফুটে

Aye Khuku Aye: মুক্তি পেল ‘আয় খুকু আয়’-এর ট্রেলার, লা-জবাব প্রসেনজিৎ – দিতিপ্রিয়া

রবিবারের হাতিবাগান চত্বর সকাল ৯টা থেকে প্রসেনজিৎ-ময়। এ দিনই স্টার থিয়েটারে মুক্তি পেল অভিনেতার আগামী ছবি ‘আয় খুকু আয়’-এর প্রচার ঝলক। প্রযোজনায় জিৎ প্রোডাকশন। প্রচারের

বাড়ি তৈরির আগে ভিত-পুজো করা কেন জরুরি জানুন?

কোনও ব্যক্তি জমিতে বাড়ি নির্মাণের পূর্বে সেখানে ভূমি পুজো বা ভিত পুজো করিয়ে থাকেন। হিন্দু শাস্ত্র মতে, বাড়ি নির্মাণের পূর্বে এই পুজো করিয়ে নেওয়া ভালো।

এই ৫ খাবার কমিয়ে দেবে গ্যাস ও পেট ফাঁপার সমস্যা

ভারী কিছু খেলেই গ্যাস ও পেট ফাঁপার সমস্যায় নাজেহাল হতে দেখা যায় অনেককেই। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পেটের সমস্যা সামলাতে শুধু ডাক্তার-বদ্যি দেখালেই চলবে না, বদল আনতে

SVF নয় অন্য প্রযোজকের সঙ্গে ফেলুদা করছেন সন্দীপ রায়, শুটিং শুরু ১০ জুন

১০ জুন থেকে কলকাতাতেই শুরু হচ্ছে হত্যাপুরীর শুটিং(Hatyapuri Shooting)। তারপরই ইউনিট যাবে পুরীতে(Puri)। সন্দীপ রায়ের(Sandip Ray) ইচ্ছেমতো সেই ইন্দ্রনীল সেনগুপ্তই(Indraneil Sengupta) থাকছেন ফেলুদার(Feluda) ভূমিকায়। জটায়ুর(Jatayu)

error: Content is protected !!