নীলষষ্ঠীর ব্রত পালনের অর্থ কী? জেনে নিন এখনই | Bengali News on Bengali Movie, Health, Lifestyle, Remedies, Food & Sex

নীলষষ্ঠীর ব্রত পালনের অর্থ কী? জেনে নিন এখনই

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp

নীল ষষ্ঠী বাঙালির এক প্রাচীন প্রথা কিংবা সংস্কারও বলা যেতে পারে।তাই নীলষষ্ঠীর দিন প্রতিটি হিন্দু বাড়ির মহিলারাই নিজের সন্তানের মঙ্গল কামনায় ব্রত পালন করেন। বাড়ির প্রতিষ্ঠিত শিবের পাশাপাশি মন্দিরগুলিতে ভিড় চোখে পড়ার মতন হয়। সকাল থেকে উপবাসে থেকে সন্তানের মঙ্গল কামনায় শিবের মাথায় জল ঢালেন এবং নীলের বাতি জ্বালান। সাধারণত চৈত্র মাসের চড়ক উৎসবের আগের দিনই নীলপুজো পালিত হয়। তাই আজ, অর্থাৎ ১৩ এপ্রিল (বুধবার) নীলপূজা পালিত হচ্ছে বঙ্গদেশে।

প্রসঙ্গত, দেবাদিদেবের অপর নাম নীলকণ্ঠ। অনেকে মনে করেন যে, মহাদেবের সঙ্গে নীলচণ্ডিকা কিংবা নীলাবতী দেবীর বিবাহ হয়েছিল এই দিন, তাই জাঁকজমকভাবে আজও নীলপূজা করা হয়। প্রচলিত কাহিনী অনুযায়ী, দক্ষযজ্ঞে দেবী সতী দেহত্যাগ করবার পর পুনরায় নীলধ্বজ রাজার বিল্ববনে আবির্ভূত হন তিনি। মনে করা হয় রাজা তাঁকে কন্যার মতন বড় করে ফের মহাদেবের সঙ্গে বিয়ে দেন তাঁর। বাসরঘরে নীলাবতী শিবকে মোহিত করেন। পরে মক্ষিপারূপ ধারণ ফুলের সঙ্গে জলে নিক্ষিপ্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন তিনি। আর মৃত্যুশোকে রাজা এবং রাণীও প্রাণ ত্যাগ করেন। অনেকের ধারণা শিব ও নীলাবতীর বিয়ে উপলক্ষে নীলপুজো হয়। এছাড়া অপর একটি কাহিনি অনুযায়ী, বহু কাল আগে এক ব্রাহ্মণ পরিবার বাস করত। কিন্তু তাঁদের কোনও সন্তান ছিল না। কারণ সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার পরই মারা যেত। সন্তান শোকে বিহ্বল হয় বামুন-বামনি তীর্থে বেড়িয়ে পড়ার সিদ্ধান্ত নেন। নানান তীর্থ স্থান ঘুরতে ঘুরতে একদিন সরযূ নদীর তীরে উপস্থিত হন। ব্রাহ্মণ সরযূ নদীতে ডুবে জীবন শেষ করার কথা বলেন ব্রাহ্মণীকে। তিনি বলেন,  ‘এই জলে ডুবেই আমাদের জীবন শেষ করি চলো। বংশ রক্ষার জন্য যখন একটি সন্তানও বেঁচে নেই, তখন আমরা বেঁচে থেকে কী করব? ’

আর তখনই এক বৃদ্ধার রূপ ধরে সেখানে আবির্ভূত হন ষষ্ঠী। ব্রাহ্মণ-ব্রাহ্মণীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘বাছারা, তোমরা আর বেশি দূরে যেও না, না-হলে ডুবে মরবে।’ তখন তাঁরা বৃদ্ধাকে নিজেদের সমস্ত দুঃখের কথা খুলে বলেন। সব শুনে মা ষষ্ঠী বলেন, ‘দোষ তো তোমাদেরই। সদ্যজাতের কান্না শুনে অহঙ্কারে মত্ত হয়ে তোমরা সব সময় আমাকে বলতে, বাবা! আপদ গেলেই বাঁচি। কিন্তু কখনও বলেছ কি, ষষ্ঠীর দাস বেঁচে থাক? সেই পাপেরই ফল ভোগ করছ তোমরা।’ বৃদ্ধার সেই কথা শুনে বামনি তাঁর পা ধরে বলেন, ‘কে তুমি, বল মা।’ বৃদ্ধা বললেন, ‘আমিই মা ষষ্ঠী। শোন, এই চৈত্র মাসে সন্ন্যাস করবি এবং সেই সঙ্গে শিবপুজো। সংক্রান্তির আগের দিন উপবাস করে নীলাবতীর পুজো করে নীলকন্ঠ শিবের ঘরে বাতি জ্বেলে দিবি। আর তারপর আমাকে প্রণাম করে জল খাবি। একে বলে নীল ষষ্ঠী।’ এইভাবেই নীল পূজার প্রচলন হয়েছে বলেই অনেকে মনে করেন।

নীলের ব্রতের দ্রব্য: ব্রত পালনের উপকরণ হিসাবে লাগে বেলপাতা, ডাব, বেল, শশা, আতপ চাল এবং ফল। চৈত্র মাসের সংক্রান্তির দিন সারা দিন উপোস করার পর সন্ধ্যাবেলা শিবের মাথায় জল ঢেলে শিবকে প্রণাম করে, তারপর জল খেতে হয়। আর সন্ধ্যায় নীলের বাতি জ্বালাতে হয়।

ব্রতের মাহাত্ম্য: সন্তানবতী মায়েরা এই ব্রত পালন করলে তাঁদের সন্তানের কোনও রকম অমঙ্গল হয় না। তাই এই ব্রত কেবলমাত্র মায়েরাই পালন করে থাকেন।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Related Article

Recent Article

Lifestyle: অন্তর্বাস কেনার সময় অবশ্যই এই বিষয়গুলো মাথায় রাখুন মহিলারা

বেশিরভাগ মহিলা মনে করেন যে অন্তর্বাস আকর্ষণীয় হওয়া উচিত। কিন্তু এমনটা করা ঠিক নয়। অন্তর্বাসের রঙ, কাট এবং স্টাইল পরীক্ষা করার পাশাপাশি, এটি যোনির জন্য

Astro Tips: আর্থিক সমস্যা মেটাতে বিপত্তারিনী ব্রতের পর কাজে লাগান পুজোয় ব্যবহৃত উপকরণ

বাঙালি সংস্কৃতিতে, সময়ে সময়ে বাড়িতে পুজো করা নিত্য বিষয়। অনেক উপকরণ পুজোর পরে থেকে যায়। যা পুজো শেষে জলে ফেলে দেওয়াই নিয়ম। কিন্তু আমরা কি

Health Tips: সকালে উঠে কি বমি বমি পাচ্ছে? এখনই সতর্ক হন

সাধারণত গ্যাস বা বদহজমের জন্য বমি হয়। কিন্তু সকালবেলায় খালি পেটে বমি পেলে, তার জন্য বেশ কিছু কারণ থাকে। আমাদের প্রত্যেকের এই কারণগুলি সম্বন্ধে সচেতন

Intimate Session: এই ৩ ভুল শারীরিক মিলনের আগে কখনও নয়

যৌনজীবন আরও সুখকর করে তুলতে শারীরিক ঘনিষ্ঠতার আগে বা পরে কোন কাজগুলি করবেন না? ১) মদ্যপান করা: প্রিয়জনকে নিবিড় ভাবে কাছে পাওয়ার এই আনন্দ উদ্‌যাপনে অনেকেই মদ্যপান

Sawan 2022: সকল মনোবাসনা পূরণ হয়, এই শ্রাবণে সব সোমবারেই একাধিক শুভ যোগ

শ্রাবণ মাসের সোমবার উপবাস রেখে মহাদেবের আরাধনা করলে সকল মনোবাসনা পূরণ হয়। এই বছর শ্রাবণ মাসের প্রতিটি সোমবারই বিশেষ ফলদায়ক হতে চলেছে বলে জানাচ্ছেন জ্যোতিষ

সানাইয়ের সুর আর অসমবয়সী প্রেমগাঁথা, অগাস্টেই মুক্তি পাচ্ছে Bismillah

শুটিং শেষ হয়েছিল দু’বছর আগেই । ২০২০-তেই মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল ইন্দ্রদীপ দাশগুপ্তের ‘বিসমিল্লাহ'(Bismillah)। কিন্তু, করোনার কারণে এই সিনেমার মুক্তিও পিছিয়ে দেওয়া হয় । অবশেষে

error: Content is protected !!