১০৮ বছর পর দুর্লভ যোগে নাগ পঞ্চমী, কালসর্প দোষ থেকে মুক্তি পেতে পুজো করুন এই উপায়ে | Bengali News on Bengali Movie, Health, Lifestyle, Remedies, Food & Sex

১০৮ বছর পর দুর্লভ যোগে নাগ পঞ্চমী, কালসর্প দোষ থেকে মুক্তি পেতে পুজো করুন এই উপায়ে

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp

AOL Desk: হিন্দু ধর্মে নাগ পঞ্চমীর পুজোর বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। এদিন নাগ দেবতা ও সর্পের পুজো করা হয়। চলতি বছর ১৩ অগস্ট, শুক্রবার নাগপঞ্চমীর পুজো। শ্রাবণ মাসের শুক্লপক্ষের পঞ্চমী তিথিকে নাগ দেবতার পুজোর জন্য অধিক গুরুত্বপূর্ণ মনে করা হয়। এদিন সাপেদের যা অর্পণ করা হয়, তা নাগ দেবতাদের কাছে পৌঁছেয় যায়। নাগ দেবতাদের প্রতিনিধি হিসেবে জীবিত সর্পদের পুজো করা হয়।

জ্যোতিষীদের মতে, চলতি বছরের নাগ পঞ্চমী বিশেষ ভাবে গুরুত্বপূর্ণ। প্রায় ১০৮ বছর নাগ পঞ্চমীর দিনে একটি দুর্লভ যোগ সৃষ্টি হচ্ছে। কালসর্প দোষ থেকে মুক্তির জন্য এই দুর্লভ যোগ উপযোগী।

এ বছর নাগ পঞ্চমীর দিনে উত্তরা যোগ ও হস্ত নক্ষত্রের বিশেষ যোগ সৃষ্টি হচ্ছে। আবার এদিন অমৃত নামক মহা ঔদায়িক থাকছে। পাশাপাশি সাধ্য যোগ থাকছে দুপুর ৩টে ৪১ মিনিট পর্যন্ত। ১০৮ বছর পর নাগ পঞ্চমীর দিন এই যোগ থাকছে। এমন পরিস্থিতিতে এদিন কালসর্প দোষ নিবারণের পুজো অধিক প্রভাবশালী ও ফলদায়ী।

নাগ পঞ্চমীর পুজোর শুভক্ষণ

তারিখ- চলতি বছর ১৩ অগস্ট নাগপঞ্চমী।

নাগ পঞ্চমী তিথি শুরু- ১২ অগস্ট ২০২১, দুপুর ৩টে ২৪ মিনিটে।

নাগ পঞ্চমী তিথি সমাপ্ত- ১৩ অগস্ট ২০২১, দুপুর ১টা ৪২ মিনিটে।

পুজোর শুভক্ষণ- সকাল ৫টা ৪৯ মিনিট থেকে ৮টা ২৮ মিনিট।

কোষ্ঠিতে কালসর্প দোষ থাকলে নাগপঞ্চমীর দিন কিছু উপায় করলে উপকার পেতে পারেন। উপরন্তু এদিন সৃষ্ট দুর্লভ যোগের কারণে কালসর্প দোষ নিবারণের উপায় অধিক সাফল্য লাভ করতে পারবেন।

কী উপায় করবেন জেনে নিন

১. নাগ পঞ্চমীর দিন নাগ দেবতার দর্শন করে তাঁর পুজো করুন। দুধ দিয়ে স্নান করিয়ে দক্ষিণাঅর্পণ করুন এবং ভুলের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করুন। এর পর রাহু-কেতুর জপ করুন। এর পর গোমেদ বা রুপোর তৈরি সাপের আকৃতির আংটি পরুন। এর ফলে কালসর্প দোষ নিবারণ করা সম্ভব হবে।

২. নাগ পঞ্চমীর দিনে কালসর্প দোষ শান্তি পুজো করান। এর পর রুপো নাগ ও নাগিনের জোড়া জলে প্রবাহিত করন।

৩. যে শিবলিঙ্গে আগে থেকে নাগ লাগানো নেই, সেখানে পঞ্চধাতুর নাগ লাগান। শিবলিঙ্গকে দুধ, জল ও পঞ্চামৃত দিয়ে অভিষেক করান এবং নাগ দেবতাকে প্রণাম করুন। কালসর্র দোষের প্রভাব দূর করার জন্য প্রার্থনা করুন।

৪. কোষ্ঠিতে কালসর্প দোষ থাকলে, নাগ পঞ্চনীর দিনে বাড়িতে ময়ূর পঙ্খ এনে রাখুন। এর পর নিয়মিত হরির উপাসনা করুন। হরির আরাধনার ফলেও কালসর্প দোষ দূর হয়।

৫. নাগ পঞ্চমীর দিনে সাপের পুজোর পর বাড়ি বা মন্দিরে বসে নাগ গায়ত্রী মন্ত্র জপ করুন। মন্ত্রটি হল-

ওম নাগকুলায় বিদ্মহে বিষদন্তায় ধীমহি তন্নো সর্পঃ প্রচোদয়াৎ।

১০৮ বার এই মন্ত্র জপ করতে হবে। এর ফলেও কালসর্রপ দোষের প্রভাব দূর হয়।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Related Article

Recent Article

Aye Khuku Aye: মুক্তি পেল ‘আয় খুকু আয়’-এর ট্রেলার, লা-জবাব প্রসেনজিৎ – দিতিপ্রিয়া

রবিবারের হাতিবাগান চত্বর সকাল ৯টা থেকে প্রসেনজিৎ-ময়। এ দিনই স্টার থিয়েটারে মুক্তি পেল অভিনেতার আগামী ছবি ‘আয় খুকু আয়’-এর প্রচার ঝলক। প্রযোজনায় জিৎ প্রোডাকশন। প্রচারের

Astro Tips: জন্মতিথি অনুযায়ী কোন রং আপনার পক্ষে শুভ

জন্মতিথি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। অধিকাংশ ক্ষেত্রে এর গুরুত্ব কম বলা হলেও তা ঠিক নয়। চন্দ্র এবং সূর্যের দূরত্বের হিসাবে নির্ণয় করা হয় তিথি। অমাবস্যা থেকে

রেকর্ড ব্যবসা ‘বেলাশুরু’ ও ‘অপরাজিত’র, জানুন কোন সিনেমা কত কোটি ব্যবসা করল

ফের সিনেমা হলে বাংলা ছবির রমরমা। একদিকে ‘বেলাশুরু’, অন্যদিকে ‘অপরাজিত’। এই দুই সিনেমার টানেই ফের হলমুখী দর্শক। প্রথম দিনই ৩৫ লক্ষ টাকার ব্যবসা করেছে শিবপ্রসাদ

SVF নয় অন্য প্রযোজকের সঙ্গে ফেলুদা করছেন সন্দীপ রায়, শুটিং শুরু ১০ জুন

১০ জুন থেকে কলকাতাতেই শুরু হচ্ছে হত্যাপুরীর শুটিং(Hatyapuri Shooting)। তারপরই ইউনিট যাবে পুরীতে(Puri)। সন্দীপ রায়ের(Sandip Ray) ইচ্ছেমতো সেই ইন্দ্রনীল সেনগুপ্তই(Indraneil Sengupta) থাকছেন ফেলুদার(Feluda) ভূমিকায়। জটায়ুর(Jatayu)

Astro Tips: বাস্তুদোষ কাটাতে ঝাঁটা রাখুন এই পাঁচটি টোটকা মেনে

আলমারির তলায় রাখতে পারেন ঝাঁটা কিংবা লুকনো যে কোনও স্থানে রাখুন। এতে সুখ শান্তি বজায় থাকবে। দক্ষিণ দিকে রাখুন ঝাঁটা। বাড়ির ভুল দিকে ঝাঁটা রাখলে

Relationship: বিয়ের আগে যৌনতায় মাতেন দেশের কত শতাংশ মানুষ? সরকারি তথ্যে চাঞ্চল্য

আমাদের দেশে সেক্স এখনও অনেকসময়ই ট্যাবু হিসাবে বিবেচিত হয়। এমনকী শারীরিক ঘনিষ্ঠতা (Intimacy) নিয়ে কথা বলতেও মানুষ সাধারণত ভয় পেয়ে থাকেন। কিন্তু যুগ অনেকটাই এগিয়ে

error: Content is protected !!