কোন দেবতার আরাধনায় কেন ছট পুজো করা হয়, জানুন পুজোর সঠিক নিয়মাবলী | Bengali News on Bengali Movie, Health, Lifestyle, Remedies, Food & Sex

কোন দেবতার আরাধনায় কেন ছট পুজো করা হয়, জানুন পুজোর সঠিক নিয়মাবলী

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp

কার্ত্তিক মাসের শুক্ল ষষ্ঠী। বৈদিক যুগ থেকে এই দিনেই সূর্যদেবতার পুজো চলে আসছে। ছট পুজো হল আসলে সূর্য পুজো। তাহলে নাম কেন ছট পুজো? আসলে ছয় কথাটাকে নেপাল বা উত্তর ভারতের অনেকে ছট বলে থাকেন। পুজোটি ষষ্ঠীর দিন হয়, সেখান থেকেই ছট শব্দের উৎপত্তি। আর তা থেকেই ছট পুজো।

ত্রেতাযুগে শ্রীরামচন্দ্র ও সীতাদেবী শুক্ল ষষ্ঠীর দিনেই সূর্যদেবের আরাধনা করেছিলেন। আবার দ্বাপরে সূর্যপুত্র কর্ণ অঙ্গদেশের রাজা ছিলেন। তিনিও সূর্যদেবের পুজো করেন। অঙ্গদেশ এখন বিহারের ভাগলপুর হিসেবে চিহ্নিত। পুরাণেও উল্লেখ আছে ছট পুজোর।

ভারতের উত্তরাখণ্ড, বিহার, উত্তরপ্রদেশ, ঝাড়খণ্ড, মধ্যপ্রদেশ ও নেপালে ছট পুজো হয় প্রধানতম উৎসবের মেজাজে। যাঁরা ছট পুজো করে থাকেন, তাঁরা ভাইফোঁটার পর থেকেই টানা নিরামিষ খান। এই নিরামিষে পেঁয়াজ রসুনও জায়গা পায় না। পুজোর দু’দিন আগে লাউয়ের যেকোনও পদ খেতে হয়। পুজোর ঠিক আগের দিন ‘খারনা’ নামের একটি নিয়ম পালিত হয়। এই সময় সূর্যদেবের উদ্দেশ্যে পায়েস, লুচি, কলা অর্পণ করা হয়। নিঃশব্দ ঘরে এই পুজো হয়ে থাকে। পুজোর শেষে প্রসাদ সকলে ভাগ করে খান। ব্যস এই পর্যন্তই। এরপর চলে নির্জলা উপবাস।

ছট পুজোর দিন সূর্যাস্তের সময় পড়ন্ত সূর্যকে উদ্দেশ্য করে নদীতে কোমর জলে নেমে পুজো সারেন ভক্তরা। সূর্যদেবের উদ্দেশ্যে এই পুজো বলে, সূর্য ওঠার মুহুর্ত ও সূর্য ডোবার মধ্যে শেষ করতে হয় পুজো। এ পুজোর বিশেষত্ব হল এ পুজোয় না লাগে কোনও মূর্তি, না লাগে কোনও পুরোহিত।

ছট পুজোর ডালাতে থাকে হলুদ গাছ, আম পল্লব, নারকেল, কলার কাঁদি, বিভিন্ন ফল, ঠেকুয়া ও খাস্তা টিকরি। নদীর ঘাটে বসে একমনে সূর্যদেবের আরাধনা করার পর নামতে হয় কোমর জলে। নদীর বুকে দাঁড়িয়ে পুজোর ডালা সূর্যদেবের উদ্দেশ্যে অর্পণ করে, ধূপ ধুনো দেখিয়ে হয় আরতি। অবশেষে পরিবারের সকলের নাম করে একটা একটা করে প্রদীপ ভাসিয়ে দেওয়া হয় নদীর বুকে। এটাই এই পুজোর নিয়মরীতি। ডালার প্রসাদ বাড়িতে নিয়ে যান সকলে।

বাড়ি ফেরার পরও কিন্তু উপোস ভাঙা হয় না। পরের দিন ভোরে আরও একবার সূর্য পুজোর জন্য ঘাটে যেতে হয়। যাঁরা মানত করেন তাঁরা বাড়ি থেকে ঘাট পর্যন্ত দণ্ডি কাটেন। এই পুজো বেশ দুরূহ। গোটা একটা দিন নির্জলা উপবাস থাকা সবার জন্য মুখের কথা নয়। এমনকি দণ্ডি কাটাও বেশ কষ্টকর। অত্যন্ত নিষ্ঠার সঙ্গে পালিত হয় ছট পুজো। ছট পুজোর শেষ দিনে ‘মৎস্যমুখী’ অনুষ্ঠান হয় অনেক পরিবারে।

পৌরাণিক মতে ছট পুজো একাধারে সূর্যদেব, মা অন্নপূর্ণা ও গঙ্গাদেবীর পুজো। এ পুজোর পিছনে একটি সামাজিক কারণও আছে। বৃষ্টি না হলে প্রখর তাপে মাঠ শুকিয়ে যেত। ফসল হত না। সেজন্য সূর্যদেবকে তুষ্ট করতেই এই পুজোর শুরু বলে একটি কাহিনি প্রচলিত আছে। সূর্যদেব তুষ্ট হলে মাঠঘাট, খালবিল শুকবে না। মাঠে ফসল ফলবে। অনেকের বিশ্বাস, ছট পুজো করলে সূর্যদেবের প্রত্যক্ষ উপস্থিতি জীবনে বিঘ্ননাশ করে, দুঃখনাশ করে, সুখ ও অর্থ-বৈভব আনে।

সূর্যের কিরণে এই জগৎ আলোকিত। পৃথিবীতে প্রাণের সঞ্চার সূর্যালোকের জন্যই। সূর্যদেবের উদ্দেশ্যে কার্ত্তিকের ছ’ দিনব্যাপী উৎসব ছট পুজো সারা বিশ্বে পালিত হয় তাঁকে তুষ্ট রেখে জগৎ সংসারের সার্বিক মঙ্গলের কামনায়।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Related Article

Recent Article

Aye Khuku Aye: মুক্তি পেল ‘আয় খুকু আয়’-এর ট্রেলার, লা-জবাব প্রসেনজিৎ – দিতিপ্রিয়া

রবিবারের হাতিবাগান চত্বর সকাল ৯টা থেকে প্রসেনজিৎ-ময়। এ দিনই স্টার থিয়েটারে মুক্তি পেল অভিনেতার আগামী ছবি ‘আয় খুকু আয়’-এর প্রচার ঝলক। প্রযোজনায় জিৎ প্রোডাকশন। প্রচারের

Astro Tips: জন্মতিথি অনুযায়ী কোন রং আপনার পক্ষে শুভ

জন্মতিথি একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। অধিকাংশ ক্ষেত্রে এর গুরুত্ব কম বলা হলেও তা ঠিক নয়। চন্দ্র এবং সূর্যের দূরত্বের হিসাবে নির্ণয় করা হয় তিথি। অমাবস্যা থেকে

রেকর্ড ব্যবসা ‘বেলাশুরু’ ও ‘অপরাজিত’র, জানুন কোন সিনেমা কত কোটি ব্যবসা করল

ফের সিনেমা হলে বাংলা ছবির রমরমা। একদিকে ‘বেলাশুরু’, অন্যদিকে ‘অপরাজিত’। এই দুই সিনেমার টানেই ফের হলমুখী দর্শক। প্রথম দিনই ৩৫ লক্ষ টাকার ব্যবসা করেছে শিবপ্রসাদ

SVF নয় অন্য প্রযোজকের সঙ্গে ফেলুদা করছেন সন্দীপ রায়, শুটিং শুরু ১০ জুন

১০ জুন থেকে কলকাতাতেই শুরু হচ্ছে হত্যাপুরীর শুটিং(Hatyapuri Shooting)। তারপরই ইউনিট যাবে পুরীতে(Puri)। সন্দীপ রায়ের(Sandip Ray) ইচ্ছেমতো সেই ইন্দ্রনীল সেনগুপ্তই(Indraneil Sengupta) থাকছেন ফেলুদার(Feluda) ভূমিকায়। জটায়ুর(Jatayu)

Astro Tips: বাস্তুদোষ কাটাতে ঝাঁটা রাখুন এই পাঁচটি টোটকা মেনে

আলমারির তলায় রাখতে পারেন ঝাঁটা কিংবা লুকনো যে কোনও স্থানে রাখুন। এতে সুখ শান্তি বজায় থাকবে। দক্ষিণ দিকে রাখুন ঝাঁটা। বাড়ির ভুল দিকে ঝাঁটা রাখলে

Relationship: বিয়ের আগে যৌনতায় মাতেন দেশের কত শতাংশ মানুষ? সরকারি তথ্যে চাঞ্চল্য

আমাদের দেশে সেক্স এখনও অনেকসময়ই ট্যাবু হিসাবে বিবেচিত হয়। এমনকী শারীরিক ঘনিষ্ঠতা (Intimacy) নিয়ে কথা বলতেও মানুষ সাধারণত ভয় পেয়ে থাকেন। কিন্তু যুগ অনেকটাই এগিয়ে

error: Content is protected !!