fbpx

সব বিপদ কেটে যাবে ! জপ করুন ভগবান গণেশের এই ১০৮ নাম

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp

পার্বতীপুত্র ভগবান গণেশ (Lord Ganesha) হলেন সমস্ত দেবতাদের মধ্যে প্রথম আরাধ্য দেবতা। আমাদের হিন্দু শাস্ত্রে বলা হয়ে থাকে যে, যিনি গণপতিকে ভক্তি ও শ্রদ্ধা দ্বারা খুশি করতে পারবেন, ভগবান গণেশ তাঁকে সুখ, সমৃদ্ধি ও শান্তি প্রদান করেন। ঋদ্ধি (Goddess Riddhi) এবং সিদ্ধি (Goddess Siddhi) হলেন ভগবান গণেশের দুই স্ত্রী। হিন্দু ধর্মশাস্ত্র অনুযায়ী গণেশের ১০৮টি নাম প্রচলিত রয়েছে। ভক্তরা নিষ্ঠা সহকারে এই ১০৮টি নাম জপ করলে তাঁদের জীবনে সুখ, সমৃদ্ধি আসবে। প্রচলিত এই ১০৮টি নামের প্রতিটিই কিন্তু আলাদা আলাদা অর্থ বহন করে। গৌরীসূতের এই ১০৮টি নামকে অনেকে গণেশ নামাবলীও বলে থাকেন। বিশ্বাস করা হয় ভক্তরা এই নামগুলি জপ করলে মঙ্গলের প্রতীক ভগবান শ্রীগণেশ জীবনপথের সমস্ত বাধাবিঘ্ন দূর করেন।

প্রথম আরাধ্য গৌরীপুত্র ভগবান গণেশকে বলা হয় সেই দেবতা যিনি সর্বদা সুখী থাকেন। যাঁদের ওপর তিনি প্রসন্ন হন তাঁরা সুখ, স্বাচ্ছন্দ্য এবং সমৃদ্ধি লাভ করেন। চলতি বছরের গণেশ চতুর্থীর (Ganesha Chaturthi 2021) প্রাক্কালে জেনে নেওয়া যাক শ্রীগণেশের ১০৮টি নাম কী কী এবং তাদের ভিন্ন ভিন্ন অর্থের বিবরণ।

ভগবান গণেশের ১০৮টি নাম:

১. গণদক্ষ- গণ বা সকল মানুষের প্রধান যিনি

২. গণপতি- সকল গণের নেতা

৩. গৌরীসূত- মা গৌরীর পুত্র

৪. লম্বকর্ণ- বড় কর্ণযুক্ত দেবতা যিনি

৫. লম্বোদর- বড় পেট আছে যাঁর

৬. মহাবল- অত্যন্ত শক্তিশালী যিনি

৭. মহা গণপতি- দেবাদিদেব

৮. মহেশ্বর- সমগ্র মহাবিশ্বের প্রভু

৯. মঙ্গলমূর্তি- সকল শুভ কাজের প্রভু

১০. মূষকবাহন- যাঁর বাহন এক মূষক বা ইঁদুর

১১. বালগণপতি- প্রিয়তম সন্তান

১২. ভালচন্দ্র- যাঁর মাথায় চাঁদ আছে

১৩. বুদ্ধিনাথ- জ্ঞানের প্রভু যিনি

১৪. ধূম্রবর্ণ- ধুম্রের মতো রঙ যাঁর

১৫. একক্ষর- একক অক্ষরযুক্ত যিনি

১৬. একদন্ত- এক দন্তযুক্ত যিনি

১৭. গজকর্ণ- গজের মতো কর্ণযুক্ত যিনি

১৮. গজানন- গজের ন্যায় আনন যে দেবতার

১৯. গজবক্র- গজের ন্যায় বক্রযুক্ত কাণ্ড যাঁর

২০. গজবক্ত্র- গজের ন্যায় মুখ আছে যাঁর

২১. দেবদেব- সমস্ত ঈশ্বরের মধ্যে অন্যতম যিনি

২২. দেবান্তক নাশকারী- মন্দ এবং অসুরদের ধ্বংসকারী যিনি

২৩. দেবব্রত – যিনি সকলের তপস্যা গ্রহণ করেন

২৪. দেবেন্দ্রশিক- সমস্ত দেবতাদের রক্ষক যিনি

২৫. ধার্মিক- ধর্মপথে কর্তব্য রেন যে দেবতা

২৬. দুর্জয়- অপরাজিত দেব যিনি

২৭. দ্বৈমাতুর- দুই মায়ের সন্তান যিনি; দেবী পার্বতী (Goddess Parvati) ছাড়াও দেবী গঙ্গাকে (Goddess Ganga) নানা পুরাণ গণেশের মায়ের স্থান প্রদান করেছে

২৮. একদংষ্ট্র- এক দন্তযুক্ত যিনি

২৯. ঈশানপুত্র- ভগবান শিবের পুত্র যিনি

৩০. গদাধর- গদা অস্ত্র যাঁর

৩১. অমিত- অতুলনীয় প্রভু যিনি

৩২. অনন্তচিদারুপম- অসীম এবং স্বতন্ত্র চেতনা সহ দেবতা

৩৩. অবনীশ- সমগ্র বিশ্বের প্রভু যিনি

৩৪. অবিঘ্ন- বাধা বিঘ্ন অতিক্রমকারী

৩৫. ভীম- বিশালকায় যিনি

৩৬. ভূপতি- পৃথিবীর প্রভু

৩৭. ভুবনপতি- দেবতাদের ঈশ্বর

৩৮. বুদ্ধিপ্রিয়- জ্ঞান দানকারী

৩৯. বুদ্ধিবিধাতা- জ্ঞানের প্রভু

৪০. চতুর্ভুজ- চারটি বাহু যাঁর

৪১. নিধিশ্বরম- সম্পদ এবং তহবিল দাতা

৪২. প্রথমেশ্বর- সর্বপ্রথম দেবতা

৪৩. শুভকর্ণ- বড় কর্ণযুক্ত ঈশ্বর

৪৪. শুভম- সকল শুভ কাজের ঈশ্বর

৪৫. সিদ্ধিদাতা- ইচ্ছা পূর্ণ এবং সুযোগ প্রদান করেন যে প্রভু

৪৬. সিদ্ধিবিনায়ক- সফলতা প্রদান করেন যিনি

৪৭. সুরেশ্বরম- দেবতাদের প্রভু

৪৮. বক্রতুন্ড- একটি বাঁকা শুণ্ড রয়েছে যাঁর

৪৯. অখুরথ- ইঁদুর সারথি যার

৫০. অলম্পতা- অনন্ত দেব

৫১. ক্ষিপ্র- উপাসনার যোগ্য

৫২. মনোময়- হৃদয়জয়ী

৫৩. মৃত্যুঞ্জয়- যিনি মৃত্যুকে পরাজিত করেন

৫৪. মুধকারম- যিনি সুখের মধ্যে থাকেন

৫৫. মুক্তিদায়ী- অনন্ত সুখের দাতা

৫৬. নাদপ্রতিষ্ঠা- যিনি নাদব্রহ্ম প্রতিষ্ঠা করেন

৫৭. নমস্তেতু- সকল অনিষ্টের বিজয়ী

৫৮. নন্দন- ভগবান শিবের পুত্র

৫৯. সিদ্ধন্ত- সাফল্য ও অর্জনের গুরু

৬০. পীতাম্বর – যিনি হলুদ কাপড় পরেন

৬১. গণাধিক্ষণ- সকল সংস্থার প্রভু

৬২. গুণিন- সমস্ত গুণাবলী সম্পর্কে জ্ঞাত

৬৩. হরিদ্রা- সোনার রঙ যাঁর

৬৪. হেরম্ব- মায়ের প্রিয় পুত্র

৬৫. কপিল- হলুদ এবং বাদামী রঙ যাঁর

৬৬. কবীশ- কবিদের প্রভু

৬৭. কীর্তি- খ্যাতির প্রভু

৬৮. কৃপাকর- যিনি দয়ালু

৬৯. কৃষ্ণপিঙ্গল- হলুদ-বাদামী চোখ যাঁর

৭০. ক্ষেমঙ্করী- যিনি ক্ষমা করেন

৭১. বরদবিনায়ক- সফলতার প্রভু

৭২. বীরগণপতি- বীর প্রভু

৭৩. বিদ্যাবিধি- জ্ঞানের ঈশ্বর

৭৪. বিঘ্নহর- বাধা দূর করেন যিনি

৭৫. বিঘ্নহর্তা- বিঘ্ন দূর করেন যিনি

৭৬. বিঘ্নবিনাশন- বিঘ্ন বিনাশ করেন যিনি

৭৭. বিঘ্নরাজ- সকল বাধার প্রভু

৭৮. বিঘ্নরাজেন্দ্র- সকল বাধার অধিকারী

৭৯. বিঘ্নবিনাশয়- বাধা ধ্বংসকারী

৮০. বিঘ্নেশ্বর- প্রতিবন্ধকতার প্রভু

৮১. শ্বেত- যিনি শ্বেত রঙের রূপে বিশুদ্ধ

৮২. সিদ্ধিপ্রিয়- যিনি ইচ্ছা পূরণ করেন

৮৩. স্কন্দপূর্বজ – ভগবান কার্তিকের ভাই

৮৪. সুমুখ- শুভ মুখ যাঁর

৮৫. স্বরূপ- সৌন্দর্যের প্রেমিক

৮৬. তরুঁ- যাঁর বয়স অচঞ্চল

৮৭. উদ্দণ্ড- চঞ্চল

৮৮. উমাপুত্র- পার্বতীর পুত্র

৮৯. বরগণপতি- সুযোগের প্রভু

৯০. বরপ্রদ- ইচ্ছা এবং সুযোগ দানের প্রভু

৯১. প্রমোদ- আনন্দ

৯২. পুরুষ- বিস্ময়কর ব্যক্তিত্ব

৯৩. রক্ত- লাল শরীর যাঁর এমন প্রভু

৯৪. রুদ্রপ্রিয়- ভগবান শিবের প্রিয়

৯৫. সর্বদেবতমান- সমস্ত স্বর্গীয় দেবতার নৈবেদ্য গ্রহণকারী

৯৬. সর্বসিদ্ধান্ত- দক্ষতা ও বুদ্ধিমত্তা প্রদানকারী

৯৭. সর্বাত্মন- মহাবিশ্বের রক্ষক

৯৮. ওঙ্কার- ওম আকৃতিযুক্ত

৯৯. শশীবর্ণম- যাঁর রঙ চন্দ্রের ন্যায় সুন্দর

১০০. শুভগুণকানন- যিনি সকল গুণের কর্তা

১০১. যোগাধীপ- ধ্যানের প্রভু

১০২. যশস্বিন- সব চেয়ে প্রিয় এবং জনপ্রিয় ঈশ্বর

১০৩. যশস্কর- খ্যাতি ও ভাগ্যের প্রভু

১০৪. যজ্ঞকায়- যিনি সমস্ত ত্যাগ স্বীকার করেন

১০৫. বিশ্বরাজ- সংসারের স্বামী

১০৬. বিকট- অত্যন্ত বিশাল

১০৭. বিনায়ক- সকলের প্রভু

১০৮. বিশ্বমুখ- মহাবিশ্বের গুরু

সারা বছর জুড়েই শুক্লপক্ষের এবং কৃষ্ণপক্ষের চতুর্থী তিথিতে উদযাপিত হয় সিদ্ধিদাতা গজাননকে প্রসন্ন করার জন্য সঙ্কষ্টী চতুর্থী এবং অন্য চতুর্থী ব্রত। গণেশের একেকটি নাম অনুসারে সেই সব চতুর্থী ব্রত পরিচিত হয়ে থাকে। এদের মধ্যে ভাদ্র মাসের শুক্লপক্ষের চতুর্থী তিথির মাহাত্ম্য সর্বাধিক; বলা হয় যে যিনি এই চতুর্থীতে শ্রীগণেশের ১০৮ নাম কীর্তন করেন, তাঁর সর্বমনোবাঞ্ছা ভগবানের কৃপায় পূর্ণ হয়।

Share on facebook
Facebook
Share on twitter
Twitter
Share on linkedin
LinkedIn
Share on whatsapp
WhatsApp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Related Article

Recent Article

Nail Care Tips: নখকে সুন্দর ও মজবুত করে তুলুন ঘরোয়া উপায়ে!

শরীরের অন্যান্য অংশের মত নখেরও বিশেষ যত্নের প্রয়োজন হয়। যদি আপনি নখের সঠিকভাবে যত্ন না নেন, তাহলে সেগুলি শুষ্ক ও দুর্বল হয়ে যায় এবং সহজেই

Fish Oil: মানসিক অবসাদে ভুগছেন? খাওয়া শুরু করুন মাছের তেল!

মাছের টিস্যু থেকে তৈরি করা হয় মাছের তেল। আমরা সাধারণত ইলিশ মাছের তেল ভাতের সঙ্গে খেয়ে থাকি। কিন্তু এমন অনেক সামুদ্রিক মাছের তেল রয়েছে যা

Pitri Tarpan: এই ৫ কাজ না করলে তর্পণ হবে বৃথা, জেনে নিন

পিতৃ পক্ষের (Pitri Paksha) সঙ্গে শ্রাদ্ধ এবং তর্পণের পর্বও শুরু হয়েছে দেশজুড়ে। এই দিনগুলিতে, পূর্বপুরুষদের আত্মার শান্তির জন্য, পূর্ণ আচারের সঙ্গে পূজা করা হয়। পিতৃদোষ

২১ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু পিতৃপক্ষ, জানুন এই সময়ের ৫টি জরুরি নিয়ম

বৈদিক ক্যালেন্ডার অনুসারে দেবীপক্ষের আগে ১৫ দিন ধরে চলে পিতৃপক্ষ। এই সময়টা প্রয়াত পূর্বপুরুষের উদ্দেশ্যে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করার জন্য নির্দিষ্ট। মনে করা হয় এই সময় প্রয়াত

সফল ভাবে বিয়ে টিকিয়ে রাখার ৫ গুপ্ত মন্ত্র…

‘Happy Couple’ বা সুখী দম্পতি শুনতে খুব ভালো লাগে। কিন্তু এর পিছনে থাকে অনেক পরিশ্রম। আসলে সুখী দম্পতের কিন্তু কোনও গুপ্ত রহস্য নেই। একে অন্যের

গর্ভাবস্থায় এই ভারী কাজগুলো একেবারেই করবেন না, বিপদ হতে পারে

মা হওয়া প্রত্যেক মহিলার কাছে যেমন খুব সুখকর, তেমন আবার প্রতিটা মুহূর্ত খুব চ্যালেঞ্জিং। এই সময় প্রতিটা পদক্ষেপ খুব ভাবনা-চিন্তা করে চলতে হয়, একটু অসাবধান

error: Content is protected !!